নিউজিল্যান্ডে হামলায় নিখোঁজ নারায়ণগঞ্জের ফারুক, উৎকণ্ঠায় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী

0


নারায়ণগঞ্জের বন্দরের ওমর ফারুক। ছবি: সংগৃহীত

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে নারায়ণগঞ্জের বন্দরের ওমর ফারুক (৩৫) নিখোঁজ রয়েছেন। নিউজিল্যান্ড থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, এখনো তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ অবস্থায় বাংলাদেশে তার পরিবার-পরিজন চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছেন। নিখোঁজ ওমর ফারুক বন্দরের রাজবাড়ি এলাকার মৃত আবদুর রহমানের ছেলে।

ওমর ফারুকের স্ত্রী সানজিদা জামান নিহা জানান, বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ৫১ মিনিটে এবং নিউজিল্যান্ড সময় শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে স্বামীর সঙ্গে তার সর্বশেষ কথা হয়।

তিনি জানান, ২০১৭ সালের ২৯ ডিসেম্বর ওমর ফারুকের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন পর ফারুক নিউজিল্যান্ড চলে যান। পরে গত বছরের ১৬ নভেম্বর তিনি ছুটিতে বাড়িতে আসেন। মাত্র দুই মাস আগে পুনরায় নিউজিল্যান্ড চলে যান ফারুক।

ওমর ফারুকের ভগ্নিপতি সারোয়ার হোসেন জানান, ওমর ফারুক নিউজিল্যান্ডের একটি কন্সট্রাকশন কোম্পানিতে কাজ করেন। তার স্ত্রী বর্তমানে ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ হামলার কথা এবং ওমর ফারুকের নিখোঁজ সংবাদ তার মাকে জানানো হয়নি। এ নিয়ে বাড়ির লোকজন উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।

ওমর ফারুকের খবর জানার জন্য তারা নিউজিল্যান্ডের কনসালট্যান্ট শফিকুর রহমানের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। তার পাসপোর্ট নম্বর বিসি-০১৪৪৪১০।

ভগ্নিপতি সারোয়ার হোসেন বলেন, শনিবার ওমর ফারুকের রুমমেটের সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি তার কোনো খোঁজ দিতে পারেননি।

এদিকে ওমর ফারুকের সন্ধান পাওয়ার আশায় পরিবারের লোকজন টেলিভিশনে আপডেট দেখছেন, যদি কোনো সন্ধান পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে সরকারকে খোঁজ নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন তার পরিবার।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলার সময় ওই মসজিদে নামাজ আদায় করছিলেন বন্দরের রাজবাড়ি এলাকার ওমর ফারুক। পরিবারের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে আমাদেরকে নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত তার কোনো খোঁজ মেলেনি।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহমেদ বলেন, ওমর ফারুক আমার আত্মীয়। তার নিখোঁজ সংবাদে পরিবার উৎকণ্ঠায় রয়েছে। তার সন্ধান পেতে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীদের এলোপাতারি গুলিতে ৪৯জন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। নিহতদের মধ্যে ৩ বাংলাদেশিও রয়েছেন।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here