বাতাসের শহরে টাইগারদের টিকে থাকার লড়াই

0


নিউজিল্যান্ড সফরে বোলাররাই দলের অত্যতম ভরসা। প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানকে ফাঁদে ফেলার পরিকল্পনা করছেন টাইগাররা। ছবি: সংগৃহীত

এবারের নিউজিল্যান্ড সফরে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টটি বাংলাদেশ খেলবে ভূমিকম্পের শহর ক্রাইস্টচার্চে। ভূমিকম্পের শহরে নিউজিল্যান্ডকে নাড়িয়ে দেয়ার আশা বাঁচিয়ে রাখতে আগে টিকে থাকতে হবে সিরিজে।

আগামীকাল বাতাসের শহর ওয়েলিংটনে সেই টিকে থাকার লড়াইয়ে নামছে বাংলাদেশ দল। ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোর ৪টায় শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। হ্যামিল্টনে প্রথম টেস্টে যদিও ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ, তবু কিছুটা স্বস্তি হয়ে এসেছে দ্বিতীয় ইনিংসের লড়াই। আশা নিয়েই তাই ওয়েলিংটনে পা রেখেছে দল। কিন্তু এখানে বড় একটা শঙ্কার জায়গাও আছে।

নিউজিল্যান্ডে সফরকারী দলগুলোকে সবচেয়ে বেশি ভুগতে হয় বাতাসের সঙ্গে মানিয়ে নিতে। সেখানে ওয়েলিংটনের পরিচিতিই বাতাসের শহর হিসেবে। যেখানে সবসময়ই বাতাসের তীব্রতা থাকে প্রবল। তবে ওয়েলিংটনের বাতাস আপাতত নাড়াতে পারছে না দলের মনোবল। বাতাসের চেয়েও বড় শত্রু এখন চোট। কব্জি ও পাঁজরের চোটের কারণে প্রথম টেস্টে খেলা হয়নি মুশফিকুর রহিমের। আশা ছিল, দ্বিতীয় টেস্টে তাকে পাওয়া যাবে।

ওয়েলিংটনে কাল অনুশীলনও করেছেন মুশফিক। কিন্তু অনুশীলন শেষে কোচ স্টিভ রোডস জানালেন, ক্রিকেট বলে ব্যাটিংয়ের সময় এখনও ব্যথা থাকায় দ্বিতীয় টেস্টে মুশফিকের খেলার সম্ভাবনা ক্ষীণ। দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানকে টানা দ্বিতীয় টেস্টে না পাওয়াটা হবে বড় ধাক্কাই। ২০১৭ সালের নিউজিল্যান্ড সফরে এই ওয়েলিংটনেই সাকিব আল হাসান ও মুশফিকের ব্যাটিং-বীরত্বে আট উইকেটে ৫৯৫ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যর্থতায় সেই ম্যাচেও অবশ্য হারতে হয়েছিল। তবু সেই অভিজ্ঞতা এবার সাহস জোগাতে পারত। কিন্তু বাংলাদেশের ক্রিকেট রূপকথায় জায়গা করে নেয়া সেই ইনিংসে দুই নায়কের একজন সাকিব এবার চোটের থাবায় সফরেই যেতে পারেননি। এখন মুশফিকের খেলা নিয়েও প্রবল অনিশ্চয়তা। ওপেনার তামিম ইকবালেরও হালকা চোট সমস্যা আছে। তবে তার খেলা নিয়ে আপাতত কোনো শঙ্কা নেই। হ্যামিল্টন টেস্টে তামিম, সৌম্য ও মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরিতে ব্যাটিংয়ে কিছু প্রাপ্তি থাকলেও বোলিংয়ে কোনো সান্ত্বনাও নেই।

বিশেষ করে তিন তরুণ পেসার আবু জায়েদ, ইবাদত হোসেন ও খালেদ আহমেদ কোনো আঁচড়ই কাটতে পারেননি নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিংয়ে। যা আভাস মিলছে তাতে সেডন পার্কের মতো বেসিন রিজার্ভের উইকেটও ব্যাটিংবান্ধব হতে পারে। সেক্ষেত্রে নখদন্তহীন বোলিং আক্রমণ নিয়ে সিরিজে টিকে থাকা ভীষণ কঠিন হবে। আশার কথা হল, প্রথম টেস্টে বিশ্রামে থাকা পেস আক্রমণের নেতা মোস্তাফিজুর রহমান ফিরছেন দ্বিতীয় টেস্টে।

ওয়েলিংটনে শেষ সাত টেস্টে পাঁচশ’ ছাড়ানো পাঁচটি ইনিংস আছে নিউজিল্যান্ডের। এতেই স্পষ্ট ফেরার ম্যাচে কতটা কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে মোস্তাফিজকে। বেসিন রিজার্ভের উইকেট দেখে কিউই পেসার ট্রেন্ট বোল্টই খুব একটা আশাবাদী হতে পারছেন না। তবে সুইং না পেলে শর্ট বলে বাংলাদেশকে ঘায়েল করার বিকল্প কৌশলও ঠিক করে ফেলেছেন বোল্ট। হ্যামিল্টনে এই শর্ট বলই বাংলাদেশের সর্বনাশ ডেকে এনেছিল। বাতাসের শহরে ছবিটা বদলাবে তো?



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here