বিফলে আল-আমিনের সেঞ্চুরি, জয় দোলেশ্বরের

0


দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করেও দলকে জয় উপহার দিতে পারেননি। ম্যাচ শেষে পরাজয়ের গ্লানি নিয়েই মাঠ ছাড়ছেন আল-আমিন। ছবি: সংগৃহীত

আল-আমিনের সেঞ্চুরিতে ভর করে তিন শতাধিক রান করে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। ৩০১ রান করেও দলের পরাজয় এড়াতে পারেনি প্রাইম ব্যাংকের দলটি। সাইফ হাসান, মার্শাল আইয়ুব এবং সাদ নাঈমের ব্যাটিং ঝড়ে ১০ বল হাতে রেখেই ৫ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে প্রাইম দোলেশ্বর।

মঙ্গলবার বিকেএসপিতে প্রথমে ব্যাট করেতে নেমে ৫২ রানে দুই ওপেনারের উইকেট হারায় প্রাইম ব্যাংক। তৃতীয় উইকেটে সুদীপ চ্যাটার্জিকে সঙ্গে নিয়ে ১১০ রানের জুটি গড়েন আল-আমিন। ৫৭ রানে চ্যাটার্জি বিদায়ের পর জাকির হাসানকে সঙ্গে নিয়ে ফের ৮৫ রান যোগ করেন।

৩৬ রান করে ফেরেন জাকির। ৪৩তম ওভার পর্যন্ত খেলে ৯৯ বলে আটটি চার ও চারটি ছক্কায় ১১১ রান করে রান আউট হন আল-আমিন। তার সেঞ্চুরিতে ভর করে ৮ উইকেটে ৩০১ রান সংগ্রহ করে প্রাইম ব্যাংক।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১২ রানে ওপেনার সৈকত আলীর উইকেট হারানো দোলেশ্বর, দুই উইকেটে তুলে ৬৩ রান। তৃতীয় উইকেটে মার্শাল আইয়ুবকে সঙ্গে নিয়ে ১১৫ রানের জুটি গড়েন সাইফ হাসান। ১০২ বলে পাঁচটি চার তিনটি ছক্কায় ৮৫ রান করে ফেরেন সাইফ হাসান।

এরপর সাদ নাঈমকে সঙ্গে নিয়ে ফের ৭৬ রান যোগ করতেই আউট হন মার্শাল আইয়ুব। তার আগে ৮২ বলে ৭টি চারের সাহায্যে ৭৬ রান করেন তিনি। ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে যাওয়া সাদ নাঈম আউট হন ৪৭ বলে ৬৪ রান করে। তার বিদায়ের পর ব্যাটিং ঝড় অব্যাহত রাখেন অধিনায়ক ফরহাদ রেজা। তার ১৫ বলের অপরাজিত ৩৫ রানে ভর করে ৫ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে দোলেশ্বর।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

প্রাইম ব্যাংক: ৫০ ওভারে ৩০১/৮ (আল-আমিন ১১১, জাকির হাসান ৩৬)।

প্রাইম দোলেশ্বর: ৪৮.২ ওভারে ৩০২/৫ (সাইফ ৮৫, মার্শাল ৭৬, সাদ নাঈম ৬৪, রেজা ৩৫*)।

ফল: প্রাইম দোলেশ্বর ৫ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা: সাদ নাঈম (দোলেশ্বর)।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here