বিশ্বের সবচেয়ে বিষণ্ণ দেশগুলোর মধ্যে ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে ভারত। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডাব্লিউএইচও)-এর সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুসারে বিষণ্ণতায় ভুগছেন দেশটির ৫.৬ কোটি নাগরিক। আর ৩.৮ কোটি নাগরিকের রয়েছে উদ্বেগ ব্যাধি বা অ্যাংজাইটি জিসঅর্ডার।

কণ্ঠ শুনে বিষণ্ণতা শনাক্তকারী এআই বানিয়েছেন কানাডা’র ইউনিভার্সিটি অফ অ্যালবার্টার কম্পিউটার বিজ্ঞান গবেষক মাশুরা তাসনিম এবং অধ্যাপক ইলেনি স্ট্রোলিয়া।

স্ট্যান্ডার্ড বেঞ্চমার্ক ডেটা সেট ব্যবহার করে তাসনিম এবং স্ট্রোলিয়া একটি বিশ্লেষণ প্রক্রিয়া তৈরি করেছেন যেখানে বেশ কিছু মেশিন লার্নিং অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয়েছে। গ্রাহকের মুখের শব্দ বিশ্লেষণ করে আরও নিখুঁতভাবে বিষণ্ণতা শনাক্ত করতে পারবে এই প্রযুক্তি।

বাস্তবে এই প্রযুক্তি একটি অ্যাপে ব্যবহার করা যেতে পারে। মানুষ স্বাভাবিকভাবে কথা বলার সময় তা মজুদ করে তিনি বিষণ্ণ কিনা তা শনাক্ত করা সম্ভব হবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

স্ট্রোলিয়া বলেন, “গ্রাহকের ফোনে চলা অ্যাপটি বিষণ্ণতা, ওভার টাইমের মতো মনোভাব শনাক্তকারী লক্ষণগুলো পর্যবেক্ষণ করবে। ফোনে থাকা হাঁটা গণনা অ্যাপের মতোই। আপনি ফোন ব্যবহার করলেই আপনার কণ্ঠ শুনে বিষণ্ণতার লক্ষণগুলো চিহ্নিত করতে পারবেন।”

এই প্রযুক্তি থেকে অর্থপূর্ণ অ্যাপ বানানোই প্রধান লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

সম্প্রতি কানাডিয়ান কনফারেন্স অন আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স-এ নিজ প্রতিবেদন উপস্থাপনের সময় স্ট্রোলিয়া বলেন, “আদর্শ বেঞ্চমার্ক ডেটা সেট আরও সঠিকভাবে শনাক্তে” এই কাজ অবদান রাখবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here