নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে বিয়াইয়ের ধর্ষণে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অপরদিকে ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে শনিবার দুপুরে ধর্ষকের বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার এজহারে জানা যায়, উপজেলার কাঁচপুর ইউনিয়নের পূর্ব বেহাকৈর এলাকার শাহজাহান মিয়াকে তার ছেলের বিয়ের উকিল দেয়। এতে তাদের মধ্যে আত্মীয়তার সম্পর্ক গড়ে উঠে। এ সর্ম্পকের কারণে তাদের উভয় বাড়িতে যাওয়া আসা শুরু হয়। শাহজাহান মিয়ার ছেলে রবির সঙ্গে তার মেয়ে স্থানীয় একটি প্রাইমারি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। এ সুযোগে রবি তার মেয়েকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। সর্বশেষ গত ১২ এপ্রিল রবি তাদের বাড়িতে তার মেয়ের সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক করে। এতে তার মেয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।

এদিকে বিষয়টি উভয় পরিবারের মধ্যে জানাজানি হলে অন্তঃসত্ত্বাকে ওই ছাত্রীকে বিয়ের জন্য রবিকে চাপ প্রয়োগ করলে রবি টালবাহানা শুরু করে। এ ঘটনা এলাকায় জানাজানি হয়ে পড়লে সামাজিকভাবে টাকা বিনিময়ে আপোস মীমাংসা করার চেষ্টা করে। মীমাংসা না হওয়ায় ওই ছাত্রীর বাবা শনিবার দুপুরে সোনারগাঁও থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

সোনারগাঁও থানা পুলিশের ওসি মনিরুজ্জামান জানান, ধর্ষণের ঘটনা সামাজিকভাবে বিচার সালিশের মাধ্যমে মীমাংসার চেষ্টা করেছিল। মীমাংসা না হওয়ায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। আসমি আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here