‘শেখ হাসিনা নকশিপল্লি’সহ ৬ প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

0



জামালপুরে স্থাপিত হবে ‘শেখ হাসিনা নকশিপল্লি’। ৩০০ একর জমিতে এই পল্লি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৭২২ কোটি টাকা। নানা প্রতিকূলতা ও পুনর্বাসনের অভাবে হারিয়ে যাওয়া এই ঐতিহ্যবাহী শিল্প ও এই শিল্পের শিল্পীদের বাঁচাতেই এ প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা এই শিল্পের শিল্পীদের একই ছাদের নিচে আনতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলেন জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।
মঙ্গলবার (১২ মার্চ) রাজধানীর শের-ই-বাংলা নগরে অবস্থিত এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি—একনেকের বৈঠক শেষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান তিনি।
পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ‘শেখ হাসিনা নকশিপল্লি’ স্থাপন প্রকল্পসহ ছয়টি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে একনেক। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৬৫০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা।’
প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম এবং তথ্য ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী উপস্থিত ছিলেন।
পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, একনেক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখযোগ্য কয়েকটি নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এখন থেকে যেসব হাসপাতাল তৈরি করা হবে সেগুলো অবশ্যই বর্জ্য শোধনাগার বা ইটিপি স্থাপন করতে হবে। তা ছাড়া হাসপাতালে আলো-বাতাস যাতে চলাচল করতে পারে সেরকম ডিজাইন, কর্মচারীদের জন্য ক্যান্টিন, চিকিৎসকরা যাতে হাসপাতালেই প্রাইভেট প্রাকটিস করতে পারেন, সেজন্য নির্দিষ্ট কর্নার রাখতে হবে। এছাড়া কিডনি, হার্ট, ক্যানসার ও পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগীদের জন্য ভিন্ন ব্লক রাখারও পরামর্ম দিয়েছেন তিনি।
একনেক বৈঠকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে, বরিশাল-ভোলা-লক্ষ্মীপুর জাতীয় মহাসড়কের বরিশাল থেকে ভোলা হয়ে লক্ষ্মীপুর পর্যন্ত যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প (ব্যয় ৩১২ কোটি ৪৮ লাখ টাকা), শরীয়তপুর-ইব্রাহিমপুর ফেরিঘাট পর্যন্ত সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প (ব্যয় ৮৫৯ কোটি ৬৩ লাখ টাকা), সরকারি কর্মচারী হাসপাতালকে ৫০০ শয্যায় উন্নীতকরণ প্রকল্প (ব্যয় ৩৭৯ কোটি ৯৬ লাখ টাকা), শেখ হাসিনা নকশিপল্লি (ব্যয় ৭২২ কোটি), লেবুজাতীয় ফসলের সম্প্রসারণ, ব্যবস্থাপনা ও উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প (ব্যয় ১২৬ কোটি ৪৪ লাখ টাকা) এবং নীলফামারী-ডোমার সড়ক, বোদা-দেবীগঞ্জ সড়ক ও ফুলবাড়ী-পার্বতীপুর যথাযথ মানে উন্নীতকরণ প্রকল্প (ব্যয় ২৫০ কোটি ২৪ লাখ টাকা)।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here